NID Card Correction এনআইডি(NID) কার্ডের ভুল সংশোধন করুন এখন ঘরে বসেই মাত্র ২ মিনিটেই

nid card correction

NID Card Correction কিভাবে করবেন! সেটি নিয়ে আজকে আলোচনা করা হবে, আশা করছি আপনারা যদি এই পোস্টটি ভালো ভাবে পড়ে থাকেন, তাহলে ঘরে বসেই নিজে নিজেই মাত্র কয়েকটি ধাপ অনুসরণ করার মাধ্যমেই আপনিই আপনার এনআইডি কার্ড ঠিক করে ফেলতে পারেবন। 

এনআইডি কার্ড-এ ভুল হয় না, বা কোনো গুরুত্ব পূর্ণ তথ্য মিস হয় না সেটা খুব কম। আমরা প্রায় সবাই এনআইডি কার্ড এর ভুলের শিকার হয়েছি, এমনকি আপনি এখন আমার পোস্টটি পড়ছেন এর মানে আপনারও এনআইডি কার্ড এর সমস্যা হয়ত হয়েছে, তাই আজকে আমরা এটা নিয়েই আলোচনা করবো। 

এর আগে যদি আপনি না জানেন কিভাবে আপনার এনআইডি কার্ড অনলাইন থেকে বের করবেন খুব সহজে, সেটি নিয়ে আমি ইতিমধ্যে একটি পোস্ট পাবলিশ করে ফেলেছি, না জেনে থাকলে এই লিংকে ক্লিক করে পড়ে আসুন। এবার আসি কিভাবে আপনি আপনার এনআইডি তথ্য সংশোধন করবেন।

আরও পড়ুন –

  1. অভ্র কিবোর্ড সাজিয়ে নিন নিজের মত করে খুব সহজেই
  2. Alaap Calling App BTCL রেজিস্ট্রেশান ও রিচার্জ প্রক্রিয়াসহ অন্যান্য
  3. অন্য কেউ দেখতে পারবে না আপনার ইমেইল!
  4. Original BOYA M1 Microphone Price in Bangladesh 2022
  5. বাংলাদেশি “ফেসবুক” Facefeell Bangladesh

 

NID Card Correction From Online in Bangla

ধাপ-১ঃ প্রথমে আপনার ইউজারআইডি এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে এনআইডি প্রোফাইলে লগিন করুন। এবং “প্রোফাইল” সেকশনে ক্লিক করুন

ধাপ-২ঃ “Edit” বাটনে ক্লিক করুন, এবং “বহাল” বাটনে ক্লিক করুন। 

উল্লেখ্যঃ আপনাকে অবশ্যই পূর্বে থেকেই টাকা পে করে সংশোধন করতে হবে। কিভাবে টাকা পে করবেন সেটি নিয়েও আমি একটি পোস্ট পাবলিশ করেছি, সেটি দেখে আসুন  এই লিংক থেকে।

ধাপ-৩ঃ আপনার প্রয়োজন মত যা যা দরকার সেটি সঠিক ভাবে ঠিক করুন।

(স্থায়ী ঠিকানা অনলাইনে পরিবর্তন যোগ্য নয়) 

 মনে রাখবেন, যা যা আপনি পরিবর্তনের জন্য আবেদন করবেন, সেগুলোর জন্য আপনাকে অবশ্যই সঠিক এবং সত্য প্রমান থাকতে হবে। (যেমনঃ নাম পরিবর্তনের জন্য ডকুমেন্ট লাগবে আপনার এসএসসি/এইচএসসি সার্টিফিকেট বা জন্ম নিবন্ধনের সার্টিফিকেট, বাকি গুলো পরিবর্তনের উপর নির্ভরশীল)

যা যা পরিবর্তন করবেন, সেটির উপরে থাকা “চেকবক্স” এ ক্লিক করে সেই ফিল্ডটিকে সক্রিয় করে নিতে হবে।

  1. আপনার বাবা মা’র নাম, আপনার বাবা মা’এর এনআইডি নাম্বার, আপনার স্ত্রী সহ সকলের তথ্য পরিবর্তন করতে পারবেন।
  2. আপনার নিজের সম্পর্কে কিছু তথ্য পরিবর্তন করতে পারবেন।
  3. আপনার ঠিকানা পরিবর্তন করতে পারবেন। (স্থায়ী ঠিকানা ছাড়া)

ধাপ-৪ঃ আপনার সকল সংশোধনের তথ্য দেওয়া হয়ে গেলে আপনি এবার “পরবর্তি” বা “Next” বাটনে ক্লিক করুন। এখানে আপনি আপনার পরিবর্তন কৃত সকল তথ্য দেখতে পাবেন। পূর্বে যা ছিলো এবং এখন আপনি কি পরিবর্তন করতে চাচ্ছেন সেটি দেখতে পাবেন। যদি সব ঠিক থাকে তাহলে  এবার “পরবর্তি” বা “Next” বাটনে ক্লিক করুন।

ধাপ-৫ঃ এখানে আপনি আপনার পেমেন্টের টাকা দেখতে পাবেন, আপনি কত টাকা পে করেছেন সেটি দেখাবে। এবার আপনি নিচে থেকে আপনার এনআইডি কার্ড এর ধরন (Regular/Regular Smart Card) নির্বাচন করুন এবং  “পরবর্তি” বা “Next” বাটনে ক্লিক করুন।

ধাপ-৬ঃ এখানে আপনাকে আপনার সকল পরিবর্তন কৃত তথ্যের উপর ভিত্তি করে দলিলাদি আপলোড করতে হবে। মনে রাখবেন কোনো ফাইলের সাইজ যেন ১এমবি থেকে বেশি না হয়। আর সেটি যে পরিষ্কার হয়ে থাকে। স্ক্যান কপি রিকোমেন্ড করছি। এতে করে সাইজও কম হবে এবং পরিষ্কার থাকবে আপনার ডকুমেন্টস  গুলো। ১০টি ডকুমেন্টস-এর  বেশি আপনি আপলোড করতে পারবেন না।

ধাপ-৭ঃ “পরবর্তি” বা “Next” বাটনে ক্লিক করুন এবং সকল কিছু পুনঃ যাচাই করুন, যদি কোনো সমস্যা থাকে, তাহলে “পূর্ববর্তী” বাটনে ক্লিক করে ভুল সংশোধন করুন, আর যদি সব কিছু ঠিক  থাকে, তাহলে “জমা দিন” সাবমিট বাটনে ক্লিক করুন।

শেষ ২টি ধাপে কোনো ইমেজ দিতে না পারার কারনে আন্তরিকভাবে দুঃখিত!

এখন আপনার আবেদনটি ইলেকশন কমিশন যাচাই করবে, যদি সব কিছুই সঠিক হয়, তাহলে তারা সেটি অনুমোদন দিয়ে দিবে এবং আপনি সেটি ডাউনলোড বাটনে ক্লিক করে দেখতে পারবেন যে আপনার পরিবর্তনটি আপনার এনআইডি কার্ডে এসেছে। 

আশা করছি এই পোস্টটি পরে আপনি আপনার এনআইডি কার্ডের সমস্যা বা সংশোধন করে ফেলতে পেরেছেন ধরে বসেই খুব সহজেই। যদি কোনো সমস্যা ফেইস করে থাকেন, তাহলে অবশ্যই কমেন্ট করতে পারবেন, অথবা আমাদের গ্রুপে জয়েন হতে পারেন এই লিংক থেকে।

ধন্যবাদ

You May Also Like

About the Author: infotalkbdcom

Leave a Reply

Your email address will not be published.