প্রিমিয়াম থিম দিয়ে নিজের নামে প্রোফেশনাল ওয়েবসাইট করবেন যেভাবে [Personal Website Creation 2021]

personal website creation

নিজের নামে একটি ব্যক্তিগত ওয়েবসাইট থাকা মানেই একটা প্রফেশনাল ব্যপার☺
যাই হউক শুরুতেই মজা করে নিলাম, এখন সিরিয়াসলি বলি। Personal Website Creation আপনার জন্য।

আগে দেখুন;
আপনার একটি ব্যক্তিগত ওয়েবসাইট কেন দরকার? 

  1. চাকরির ক্ষেত্রে ব্যবহার করতে পারবেন। 
  2. পরিচিতি হিসেবে ব্যবহার করতে পারবেন। 
  3. নিজের লাইফ স্টাইল শেয়ার করতে পারবেন। 

এই  তিনটি হচ্ছে মৌলিক সুবিধা একটি ব্যক্তিগত ওয়েবসাইটের।

তবু যদি আপনি বুঝে না থাকেন তাহলে চলুন দেখি কি কি থাকছে একটি ব্যক্তিগত ওয়েবসাইটে?

Personal Website Creation In Details:

আপনার বায়োঃ 

ওয়েবসাইট হচ্ছে একটি World Wide প্লাটফর্ম, সেখানে সারা বিশ্বের মানুষ অ্যাক্সেস করতে পারে যে কোনো সময়।

বিভিন্ন দেশের মানুষ যদি আপনার সম্পর্কে জানতে ইচ্ছুক হয়,

সে চাইলেই আপনার সাইটে প্রবেশ করে জেনে নিতে পারছে।

সেজন্য চাই আপনার বায়ো, যেখানে আপনার সম্পর্কে সকল কিছুই লিখা থাকবে। আপনি কি করেন।

আপনার নিজের সম্পর্কে দুই-চার টা লাইন লিখা থাকবে। আপনার সোশ্যাল প্লাটফর্ম গুলো ইত্যাদি দেওয়া থাকবে। 

আপনার দক্ষতা এবং শিক্ষাঃ  

আগেই বলেছি আপনার একটি ব্যক্তিগত ওয়েবসাইট আপনার রিজুমি/সিভি হিসেবে কাজ করবে,

যা আপনাকে চাকরির ক্ষেত্রে অনেক বড় ভূমিকা রাখবে। 

কিভাবে সেটা বলছি, আপনি যদি আপনার সাইটে আপনার সকল দক্ষতা এবং আপনার শিক্ষাগত যোগ্যতা তুলে ধরেন।

সেখানে অনেক ধরনের মানুষ প্রবেশ করবে,

হতে পারে কেউ কেউ আপনার দক্ষতা দেখে আপনাকে তারা ডেকে নিলো ইন্টার্ভিউয়ের জন্য। 

ফলে সেটা আপনার জন্য একটা অনেক বড় সুযোগ, কারন আপনি আপনার সিভি চাইলেই সব সময় সকল কে দেখাতে পারবেন না।

কিন্তু একটি সাইট সব সময় দেখা যাবে। তাই সুযোগ কখনো মিস করবেন না। 

আপনার লাইফস্টাইলঃ 

আপনি যদি লিখা লিখি পছন্দ করেন। এমনকি আপনি যদি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম গুলোতে ইতিমধ্যে লিখা লিখি করে থাকেন।

তাহলে আপনার জন্য একটি ব্যক্তিগত ওয়েবসাইট অনেক বেশী জরুরী।

কেননা, আপনি চাইলেই সেই লিখা গুলো আপনার নিজের সাইটে প্রকাশিত করতে পারেন।

আপনার নিজের মত করেই আপনি এক একটি লিখা সাজাতে পারবেন যা অনেক বেশী উপকারি হবে। 

যোগাযোগের মাধ্যমঃ 

মনে করেন আপনি কোনো পেশাজীবী, ডাক্তার, শিক্ষক,উকিল ইত্যাদি হতে পারে।

আপনার যদি নিজের ওয়েবসাইট থাকে, তাহলে আপনি আপনার সাইটে যোগাযোগের অপশন যোগ করে রাখতে পারনে,

তাহলে আপনার যারা গ্রাহক বা অডিয়েন্সরা আছে তারা আপনার সাথে যোগাযোগ করতে পারবে ইমেইলের মাধ্যমে,

ফলে আপনি চাইলে তাদের সাথে কথা বলে আপনার ডিল করতে পারবেন। 

সোশ্যাল মিডিয়াঃ 

আপনার সাইটে আপনার সকল সোশ্যাল মিডিয়া যুক্ত করতে পারবেন,

ফলে আপনার গ্রাহক বা অডিয়েন্সরা আপনাকে নানা প্লাটফর্মে ফলো করতে পারবে। 

উপরের সকল সুবিধা গুলোই প্রায় সকল সাইটে থাকে, ফলে আপনার ব্যক্তি গত ওয়েবসাইটেও থাকবে। 

আপনি চাইলে আরো অন্য কোনো সেকশন যোগ-বিয়োগ করতে পারেন। 

কিভাবে ব্যক্তিগত ওয়েবসাইট তৈরি করা যায়ঃ 

কিভাবে  একটি ওয়েবসাইট তৈরি করা যায় এই প্রশ্নের আগে চলুন দেখে আসি,

একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে কি কি লাগে? 

একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে প্রথম যেই দুইটি জিনিস লাগে যা ছাড়া সাইট হবেই না; 

  • ডোমেইন 
  • হোস্টিং 

এই ডোমেইন হোস্টিং ছাড়া সাইট করা যাবে না। ডোমেইন হোস্টিং কি সেটা এখনো জেনে না থাকলে,

আপনি নিচের বাটনে ক্লিক করে জেনে আসতে পারেন  যে ডোমেইন হোস্টিং কি এবং কিভাবে কাজ করে। 

আশা করছি আপনি উপরের দেওয়া পোস্টটি পড়ে ফেলেছেন এবং বুঝে গিয়েছেন ডোমেইন হোস্টিং কি।

আমার কাছে কেনো ওয়েবসাইট বানাবেন?

আমি আপনাকে যেসব সার্ভিস দিবোঃ

  • লাইফটাইম সাপোর্ট।
  • ৬০ ডলার সমমূল্যের থিম দিয়ে ওয়েবসাইট করে দেওয়া হবে, কোনো চার্জ করা হবে না।
  • আপনার মনের মত ওয়েবসাইট করে দেওয়া হবে।
  • আপনার জন্য যে রকম ডিজাইন সব থেকে ভালো হবে, সেটা প্রোভাইড করা হবে।
  • ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার করে সাইট করা হবে, যা খুবই সহজ হবে আপনার জন্য।
  • একটা ওয়েবসাইটটে যা যা লাগে সব কিছুই প্রোভাইড করা হবে (ডোমেইন হোস্টং ছাড়া)।
  • ডোমেইন হোস্টিং কিনতে চাইলে আমার সাথে যোগাযোগ করে নিতে পারেবন।
  • ওয়েবসাইট মেন্টেইন করার জন্য লাইভ সাপোর্ট। ( personal website creation )

কেন আমার কাছে ওয়েবসাইট বানানোর জন্য বলছি?

একটি ওয়েবসাইট বললেই তৈরি করা যায় না, সেটার জন্য অনেক কাজ করা লাগে।

যা একটা সাধারন মানুষের দ্বারা শুরুতেই করা সম্ভব নয়।

আমি যেহেতু প্রোফেশনালি কাজ করে থাকি, তাই আপনাকে সর্বোচ্চটুকু দিয়ে কাজ করে দিতে চাই।

কত টাকা লাগতে পারে একটা ব্যক্তিগত ওয়েবসাইট তৈরি করতে?

শুরু থেকে বলছি,

আপনার একটা ডোমেইন (.Com) কিনার জন্য লাগবে সর্বোচ্চ ১০০০ টাকা।

এবং ১জিবি হোস্টিং কিনলে লাগতে পারে ১০০০ টাকা, (বেশি-কম হতে পারে)।

তাই আপনার এগুলো কিনতে প্রায় ২০০০ টাকা লাগতে পারে, (কম বেশি হতে পারে)।

 

এবার আসি আমাকে কত টাকা দেওয়া লাগবে ওয়েবসাইট তৈরি করতে?

আসলেই প্রাইসটা এক এক ওয়েবসাইটের জন্য এক এক পরিমান টাকা,

তাই আমি এখানে স্পেসিফিক ভাবে উল্লেখ করতে পারছি না।

আপনার যদি সত্যিই একটা সাইট দরকার হয়,

তাহলে আপনি নিচের লিংক থেকে আমার সাথে যোগাযোগ করুন।

আরো কিছু কথাঃ

আমি আপনাকে লাইফ সাপোর্ট দিবো সেটা ঠিক, কিন্তু সেটা যদি আমার ভুলের কারনে হয়।

তবে আমি সব সময় চেষ্টা করি আপনাকে ভালো কিছু দেওয়ার।

আপনি যদি একদম সিরিয়াস ভাবে মনে করেন আপনার ওকটি পার্সোনাল ওয়েবসাইট লাগবে।

তবে আমি আপনার জন্য সব সময়ই তৈরি আছি।

ধন্যবাদ।

You May Also Like

About the Author: infotalkbdcom

Leave a Reply

Your email address will not be published.